Wednesday, June 23, 2021
Homeপ্রযুক্তিএবার YouTube টাকা উপার্জন করতে হলে দিতে হবে পয়সা

এবার YouTube টাকা উপার্জন করতে হলে দিতে হবে পয়সা

নিজস্ব সংবাদদাতা: বিনোদনের মাধ্যমে নিজের প্রতিভাবেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে এখন সকলের ভরসা YouTube। তবে এবার YouTube-এ অর্থোপার্জনকারীদের জন্য এক অশনি সঙ্কেত নিয়ে এল Google। Google ঘোষণা করেছে যে, YouTube থেকে উপার্জনকে নিয়ে আসা হবে করের আওতায়। সুতরাং এত দিন পর্যন্ত যাঁরা বিনা ব্যয়ে YouTube-এ ভিডিও বানিয়ে টাকা উপার্জন করেছেন, তাঁদের খুশির দিন এবার শেষ হতে চলেছে। এবার থেকে তাঁদের গুনতে হবে ট্যাক্স।

জানা গিয়েছে, YouTube-এর মাধ্যমে কনটেন্ট নির্মাতাদের যা উপার্জন হবে তার ২৪ শতাংশ ট্যাক্স হিসাবে নেওয়া হবে। চলতি মাস থেকেই কার্যকর হচ্ছে এই নতুন নিয়ম। তবে নতুন এই ট্যাক্স বিধি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া সমস্ত YouTube কন্টেন্ট নির্মাতাদের জন্য প্রযোজ্য হবে। সুতরাং আপনি যদি একজন ভারতীয় YouTuber হন, তবে আপনাকেও এবার থেকে দিতে হবে ট্যাক্স। তবে আশার কথা হল, এই ট্যাক্স শুধুমাত্র আমেরিকান দর্শকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত মতামতের জন্যই দিতে হবে। বিশেষজ্ঞরা অবশ্য বলছেন যে, ভারতীয় ভিডিওতে আমেরিকান দর্শকের অভাবের কারণে নতুন এই নিয়মটি ভারতের YouTube-এর কন্টেন্ট স্রষ্টাদের উপরে খুব বেশি প্রভাব ফেলবে না।

YouTube-এর এই নতুন কর নীতিটি কী? এটি কখন ঘোষণা করা হয়েছিল? ভারতীয় YouTuber-দের উপার্জনে এর কতটা প্রভাব পড়বে? নতুন নীতিমালা দিয়ে লোকসান কম করার কী কী উপায় রয়েছে? আমরা আপনাদের এমন বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করেছি।

US ট্যাক্স আইনের আওতায় বিশ্ব জুড়ে YouTuber

মার্কিন কর আইন ‘ইন্টারনাল রেভিনিউ কোড’ (Internal revenue code) এর অধ্যায় ৩ এর অধীনে, YouTube-এ US ভিউয়ারশিপ উপার্জনকারী কন্টেন্ট নির্মাতাদের কাছ থেকে ট্যাক্স তথ্য সংগ্রহের জন্য Google দায়বদ্ধ। কন্টেন্ট নির্মাতাদের উপার্জন থেকে ট্যাক্স সংগ্রহ করে Google ‘ইন্টারনাল রেভিনিউ কোড’-কে প্রদান করে। সুতরাং যদি কোনও YouTube স্রষ্টা আমেরিকার বাইরে থাকেন এবং তিনি আমেরিকার দর্শকদের থেকে উপার্জন করেন, তবে ২০২১ সালের ১ জুন থেকে তাঁর উপার্জনের উপর ট্যাক্স কাটা শুরু হবে।

নতুন এই নীতিটি YouTube থেকে উপার্জনের উপর কী ভাবে প্রভাব ফেলবে?

প্রভাবশালী বিপণন প্ল্যাটফর্ম ডু ইয়োর থিঙ্ক (Do Your Think)-এর প্রতিষ্ঠাতা অঙ্কিত আগরওয়াল (Ankit Agarwal) বলেন, বেশিরভাগ ভারতীয় YouTuber আঞ্চলিক ভাষায় কন্টেন্ট তৈরি করেন। সে কারণেই তাঁদের বেশিরভাগ দর্শকও দেশের অভ্যন্তরে রয়েছেন। YouTube কেবল আমেরিকান দর্শকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত মতামতের জন্যই ট্যাক্স নিচ্ছে। সুতরাং আপাতত এই নতুন নীতিটি ভারতের নির্মাতাদের উপর কোনও বড় প্রভাব ফেলবে না বলেই আশা করা যাচ্ছে।

মনে করুন ২০২১ সালের জুন মাসে ভারতের YouTuber-রা YouTube থেকে ১০০০ টাকা আয় করেছেন। এবং তাঁর চ্যানেলের মোট উপার্জনের মধ্যে আমেরিকান দর্শকদের কাছ থেকে ১০০ টাকা আয় করেছেন। এখানে তিন প্রকারের কর কেটে নেওয়া যেতে পারে:

প্রথমত, সংস্থার মতে, ট্যাক্সের তথ্য প্রকাশ না করার জন্য বিশ্ব জুড়ে মোট উপার্জন থেকে ২৪ শতাংশ পর্যন্ত ট্যাক্স কেটে নেওয়া হবে। অর্থাৎ এই পরিস্থিতিতে ১০০০ টাকার মধ্যে ২৪০ টাকা ট্যাক্স হিসাবে কেটে নেওয়া হবে।

দ্বিতীয়ত, ভারতের ক্ষেত্রে, আপনি যদি করের তথ্য দেন এবং একটি কর চুক্তির দাবি করেন, তাহলে আমেরিকান দর্শকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত মতামতের উপর আপনাকে ১৫ শতাংশ ট্যাক্স দিতে হবে।

তৃতীয়ত, কোনও কন্টেন্ট স্রষ্টা যদি ট্যাক্স সম্পর্কিত তথ্য দেন এবং আমেরিকার সঙ্গে ট্যাক্স চুক্তি না করেন, তবে আমেরিকান দর্শকদের কাছ থেকে আয়ের ৩০ শতাংশ পর্যন্ত ট্যাক্স দিতে হবে।

Most Popular