Friday, July 30, 2021
HomeEDITOR PICKSপর্যটন শিল্পের ধাক্কা সামলাতে এবার ঘরোয়া পর্যটনে জোর

পর্যটন শিল্পের ধাক্কা সামলাতে এবার ঘরোয়া পর্যটনে জোর

নিজস্ব সংবাদদাতা : বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ফের করোনার দ্বিতীয় ঢেউ পর্যটন শিল্পে ধাক্কা দিয়েছে। আবার বছরের শেষে আসতে পারে তৃতীয় ঢেউ। এই পরিস্থিতিতে প্রায় দু’‌বছর ধরে এ রাজ্যে আসছেন না বিদেশি পর্যটকরা। প্রতিবছর গড়ে প্রায় ১৬ লক্ষ বিদেশি পর্যটক আসেন বাংলায়।

করোনার প্রভাবে বিদেশি পর্যটক আসা প্রায় বন্ধ। আর তাই পর্যটন শিল্পের ধাক্কা সামলাতে এবার ঘরোয়া পর্যটনে জোর দিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।ঘরোয়া পর্যটনকে উৎসাহিত করতে হোম স্টে, ভিলেজ ট্যুরিজম, বিচ ট্যুরিজম, বার্ড ওয়াচিং ও ট্রেকিংয়ে জোর দেওয়া হচ্ছে।

পর্যটনের সঙ্গে যুক্ত ৬ লক্ষ কর্মীর টিকাকরণ দ্রুত সেরে ফেলতে চাইছে রাজ্য। বিধিনিষেধ উঠে যাওয়ার পরই পর্যটন কেন্দ্রগুলি চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। সুন্দরবন, বকখালি, সাগর, শান্তিনিকেতন, দিঘা, মন্দারমনি, বিষ্ণুপুর ও মুর্শিদাবাদকে পর্যটকদের সামনে তুলে ধরতে চাইছে রাজ্য। উত্তরবঙ্গেও শিলিগুড়ি থেকে ৩-৪ ঘন্টার মধ্যে থাকা পর্যটনস্থলগুলিকেও সংস্কার করা হচ্ছে।

সাজিয়ে তোলা হচ্ছে বনবাংলোগুলিকে।গতবছর লকডাউন ওঠার পর পুজো, শীতকালে পর্যটন কেন্দ্রগুলির ভরে গিয়েছিল পর্যটকে। ঘর পাওয়া মুশকিল হচ্ছিল। কলকাতা থেকে গাড়ি-পথের দূরত্বে পর্যটনস্থলে লজ ফাঁকা পাওয়াই ছিল ভাগ্যের ব্যাপার। দীর্ঘদিন বাঁধা থাকার পর হাওয়া বদল করতে বেরিয়ে পড়েছেন বাঙালিরা।

গতবছরের অভিজ্ঞতা থেকে রাজ্য সরকার মনে করছে, এবারও কড়াকড়ি উঠে গেলে পর্যটকরা ভিড় জমাবেন রাজ্যে পর্যটনস্থলগুলিতে। তাই প্রতিটি টুরিস্ট লজকে সংস্কার করে তৈরি করা হচ্ছে।

Most Popular