Saturday, December 5, 2020
Home EDITOR PICKS নৌ-সেনায় শক্তিবৃদ্ধি ভারতের

নৌ-সেনায় শক্তিবৃদ্ধি ভারতের

নিজস্ব সংবাদদাতা : ভারত মহাসাগরে চিনা নৌবাহিনীকে আটকে দিতে সক্ষম হলেও সাবমেরিনের ক্ষেত্রে সংখ্যার নিরিখে অনেকটাই পিছিয়ে ভারতীয় নৌবাহিনী। লালফৌজের ভাণ্ডারে এই মুহূর্তে রয়েছে প্রায় ৫৫টি সাবমেরিন। তুলনায় ভারতের হাতে রয়েছে মাত্র ১২টি। এই অসঙ্গতির কথা মাথায় রেখেই সাবমেরিন বিধ্বংসী নয়া মিসাইল পরীক্ষা করলো ভারত।ভারতীয় নৌ-বাহিনীর হাতে এল নতুন অত্যাধুনিক হাতিয়ার। জলের তলায় লুকিয়ে থাকা শত্রুকে দমন করতে ‘SMART’ মিশাইল এবং টর্পেডোর সফল উত্ক্ষেপণ করল ডিআরডিও। ওড়িশা উপকূলে হুইলার দ্বীপ থেকে সফল পরীক্ষা হল ‘SMART’-এর। SMART হল ‘Supersonic Missile Assisted Release of Torpedo’।পরীক্ষা সফল হওয়ার পর DRDO-র চেয়ারম্যান জি সতীশ রেড্ডি বলেন, ‘সাবমেরিন যুদ্ধের গতি বদলে দেওয়ার মতো প্রযুক্তি আছে SMART-এ । তাই এটা গেম চেঞ্জার টেকনোলজি।’এই মিসাইলের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো এটি অনেক দূরের লক্ষবস্তুকে সহজেই আঘাত করতে পারে সঙ্গে গতিবেগ নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা রাখে। এই স্মার্ট মিসাইলের সফল উত্ক্ষেপণ নিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং প্রশংসা করেছেন ও টুইট করে জানিয়েছেন, ‘ডুবোজাহাজ বিধ্বংসী মিসাইলের পরীক্ষায় ডিআরডিও সফল। এন্টি সাবমেরিন ওয়ার ফেরারের বড় হাতিয়ার হতে চলেছে এই ক্ষেপণাস্ত্র।এই কারণে ডিআরডিওকে ধন্যবাদ জানাই’। এই ক্ষেপণাস্ত্রটি ওজনে হালকা, সঙ্গে নিখুঁত নিশানা করতে সক্ষম, দিন কিংবা রাত, কিংবা যেকোনো খারাপ আবহাওয়া সব কিছুতেই এই ক্ষেপণাস্ত্র উত্ক্ষেপণ সক্ষম।এই যে ক্ষেপণাস্ত্র সেটা কিন্তু শক্তিশালী রেডার ও ইলেকট্রিক্যাল অপটিক্যাল যুক্ত। আর এই কারণেই এর এতো নিখুঁত নিশানা। এই ক্ষেপণাস্ত্র একবার যদি নিক্ষেপ করা হয় তাহলে এটিকে থামানো খুবই শক্ত।সমুদ্রের তলায় লুকিয়ে যদি সাবমেরিন হামলা করে শত্রুসেনারা, তাহলে এই ক্ষেপণাস্ত্রই হবে নৌসেনার অন্যতম বড় অস্ত্র। যে কোনও উন্নত প্রযুক্তির সাবমেরিনের দফারফা করে দিতে পারে এই টর্পেডো।সমুদ্রে গভীরে লড়াই চালানোর জন্য অস্ত্রশস্ত্র তৈরির চেষ্টা গত এক দশক ধরেই চলছিল। এর আগে বিদেশ থেকে টর্পেডো কেনা হচ্ছিল। কিন্তু গত এক দশকের চেষ্টায় যে টর্পেডো ডিআরডিও তৈরি করেছে, তা পৃথিবীর সেরা টর্পেডোগুলির অন্যতম বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রের খবর।

Facebook Comments

Most Popular

‘উমফানে দুর্নীতি খতিয়ে দেখবে ক্যাগই’, নির্দেশ বহাল প্রধান বিচারপতির

নিজস্ব সংবাদদাতা : উমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে কি না তা তদন্ত করবে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল তথা ক্যাগ। সেই নির্দেশের...

৪ জানুয়ারি থেকে রাজ্যে স্কুল খুলতে চায় ICSE বোর্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা : ইংরেজি নতুন বছরের শুরুতেই রাজ্যে স্কুল খুলতে চায় ICSE বোর্ড। যদিও রাজ্যের শিক্ষা দফতর এ বিষয়ে এখনও কোনও...

একটি অ্যাপের মাধ্যমে ট্রেন সংক্রান্ত সমস্ত সমস্যার সমাধান

নিজস্ব সংবাদদাতা : ট্রেনের টাইম টেবিল অথবা ট্রেনের যাত্রাপথ ও বর্তমান স্থিতি সম্পর্কে জানা যেত বিভিন্ন বেসরকারি অ্যাপ অথবা ওয়েবসাইট থেকে।...

‘কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই দেশে করোনা ভ্যাকসিন’, সর্বদল বৈঠকে বললেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা : দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে সর্বদলীয় বৈঠক বসেছিল। ভার্চুয়াল মাধ্যমে বৈঠক হয়। কোভিড-১৯ পরিস্থিতির পাশাপাশি,...
Facebook Comments