Wednesday, June 23, 2021
Homeদেশভারতে ফেসবুক তার প্রথম গ্ৰিভ‍্যান্স অফিসার স্পুর্থি প্রিয়া কে নিয়োগ করলেন

ভারতে ফেসবুক তার প্রথম গ্ৰিভ‍্যান্স অফিসার স্পুর্থি প্রিয়া কে নিয়োগ করলেন

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভারত সরকার সদ‍্য কিছু নিয়ম লাগু করেছিলেন সমস্ত স‍্যোশাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলির জন্য। প্রথমে না মানতে চাইলেও একে একে সমস্ত প্লাটফর্মগুলি ভারতসরকারের নীতি মেনে নেয়। কেন্দ্রের নতুন নিয়ম মেনে ভারতে গ্রিভ্যান্স অফিসার নিয়োগ করল ফেসবুক। ভারতে কোম্পানির প্রথম গ্রিভ্যান্স অফিসারের নাম স্পুর্থি প্রিয়া (Spoorthi Priya)। যে সব সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে ভারতে 50 লক্ষের বেশি গ্রাহক রয়েছে, সেই সব অ্যাপ ও ওয়েবসাইট এই নতুন নিয়মের আওতায় পড়বে। এই সব কোম্পানিকে একজন করে গ্রিভ্যান্স অফিসার, নোডাল অফিসার ও চিফ কমপ্লায়েন্স অফিসার নিয়োগ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল কেন্দ্রের তরফে। আর সেই মোতাবেক এক এক করে অফিসার নিয়োগ করছে সমাজ মাধ্যমগুলি।

ফেসবুক ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, যে কোনও সমস্যার জন্য ইমেলের মাধ্যমে স্পুর্থি প্রিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে। এছাড়াও ওয়েবসাইটে দেওয়া ঠিকানায়, যে কোনও সময়, যে কোনও সমস্যায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে বলেও জানানো হয়েছে। ফেসবুক ছাড়াও ইতিমধ্যেই Google ও WhatsApp-এর মতো সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মগুলিও নিজেদের গ্রিভ্যান্স অফিসারের নাম ঘোষণা করেছে।
ভারতে বি লালকে গ্রিভ্যান্স অফিসার নিয়োগ করেছে ফেসবুক -এর মেসেজিং অ্যাপ WhatsApp। গত সপ্তাহেই ফেসবুক তাদের কন্টেন্ট মডারেশন পলিসি পরিবর্তন করেছিল, যা কেন্দ্রের সঙ্গে কোম্পানির সংঘাতকে আরও জোরাল করতে পারে। 4 জুন ফেসবুক জানিয়েছিল, কোনও পোস্টের সত্যতা যাচাই করার সময়, পোস্ট করা ব্যক্তি কোনও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নাকি সাধারণ মানুষ, তার বিচার করা হয় না। সব কনটেন্টকে একই মানদণ্ডে বিচার করা হবে এই সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে।

সম্প্রতি সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মের অপব্যবহার ঠেকাতে নতুন নিয়ম নিয়ে এসেছে কেন্দ্র। নতুন নিয়মে অভিযোগের প্রতিকারের জন্য একটি মজবুত ফোরাম পাবেন গ্রাহকরা। নতুন নিয়মে সব সোশ্যাল কোম্পানিকে নিজেদের অ্যাপ ও ওয়েবসাইটে গ্রিভ্যান্স অফিসারের নাম জানাতে হবে। তবে, সবথেকে বড় শর্ত হল, এই গ্রিভ্যান্স অফিসারকে ভারতীয় হতে হবে এবং দেশের ভাষাও বুঝতে হবে। সঙ্গে থাকতে হবে কনট্যাক্ট ডিটেলসও। এছাড়াও কীভাবে অভিযোগ জানানো যাবে তা পরিষ্কার লিখতে হবে ওয়েবসাইটে।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এই ভারতে নিয়োজিত ফেসবুকের এই গ্রিভ্যান্স অফিসার অর্থাৎ স্পুর্থি প্রিয়ার কাজ ঠিক কী? তাঁর কাছেই আসলে ফেসবুক সংক্রান্ত যে কোনও বিষয়ে যোগাযোগ করতে পারবে কেন্দ্রের ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক। পাশাপাশিই আবার যে কোনও অভিযোগও তাঁর কাছেই জানানো যাবে। অভিযোগের 24 ঘণ্টার মধ্যে গ্রিভেন্স অফিসারকে তার প্রাপ্তি স্বীকার করতে হবে। এছাড়াও নতুন নিয়মে যে কোনও ফ্ল্যাগড কনটেন্টকে 36 ঘণ্টার মধ্যে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম থেকে সরিয়ে দিতে হবে। সেই সঙ্গেই আবার পর্নোগ্রাফির জন্য কোনও পোস্টকে চিহ্নিত করা হলে, 24 ঘণ্টার মধ্যে তা সরাতে হবে।

এই নিয়ম না মানলে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে পোস্ট হওয়া সব পোস্টের দায়িত্ব সেই কোম্পানিকেই নিতে হবে। কোনও অভিযোগ জমা পড়লে সেই কোম্পানির বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে ভারত বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় দেশ। ভারতে 53 কোটি WhatsApp গ্রাহক, 41 কোটি ফেসবুক গ্রাহক, 21 কোটি Instagram গ্রাহক ও 1.75 কোটি Twitter গ্রাহক রয়েছেন।

Most Popular