Saturday, December 5, 2020
Home EDITOR PICKS 'বহুতলের ছাদ থেকে বোমা ফেলেছে পুলিশ', দাবি কৈলাসের

‘বহুতলের ছাদ থেকে বোমা ফেলেছে পুলিশ’, দাবি কৈলাসের

নিজস্ব সংবাদদাতা : বিজেপির যুব মোর্চার নবান্ন অভিযান ঘিরে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে গেলো শহরে। বিজেপির নবান্ন অভিযান শুরুতেই লাঠিচার্জের অভিযোগ ওঠে। বিজেপিকর্মীরা ব্যারিকেড ভেঙে এগোনোর চেষ্টা করলে সাঁতরাগাছি, হেস্টিংস মোড়ে পুলিশ লাঠিচার্জ করে বলে জানা গিয়েছে। পাল্টা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইঁট ছোড়ে বিজেপিকর্মীরা । সেই পরিস্থিতি মোকাবিলায় কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটায় পুলিশ । ছোঁড়া হয় জলকামানও। পুলিশের জলকামান-রাসায়নিক স্প্রে-তে গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘বাড়ির ছাদ থেকে বিজেপি কর্মীদের উপরে বোমা ফেলা হয়েছে’। টুইটারে ভিডিয়ো প্রকাশ করে চাঞ্চল্যকর দাবি করেছেন পশ্চিমবঙ্গের বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। এদিন কৈলাশ বিজয়বর্গীয় যে ভিডিওটি প্রকাশ করেছেন, সেখানে দেখা গেছে, হাওড়া ময়দানের কাছে একটি বহুতলের ছাদ থেকে কিছু একটা নীচে ফেলছেন খাঁকি পোশাকের পুলিশ কর্মীরা। বিজেপির নবান্ন অভিযান ঘিরে হাওড়া ও কলকাতায় কার্যত ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে যায় । হেস্টিংস থেকে ডানকুনি, বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের, বাধা দিতে গেলে পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বেধে যায় তাদের। মিছিল ঘিরে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে হাওড়া ময়দান। হাওড়া ময়দানে জমায়েত হন বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ, কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামানিক সহ অন্যান্য বিজেপি নেতারা। সেখান থেকে মিছিল শুরু করে প্রথমেই মল্লিকফটকের কাছে ব্যারিকেড ভাঙ্গার চেষ্টা করে বিজেপির সমর্থকরা। জিটি রোডে একের পর এক টায়ার জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। শুধু তাই নয় বোমা ছোড়া হয় পুলিশকে লক্ষ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটানো হয়। তাতে কিছুটা দমে যায় গেরুয়া শিবির। একজনের কাছ গুলি সমেত থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার হয়। সোনারপুর স্টেশনে বিজেপির ডাকা নবান্ন অভিযানে অংশ নিতে যাওয়া দলীয় কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে বচসা বাধে আরপিএফের। জানা গিয়েছে, সোনারপুর স্টেশনে স্পেশাল ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। তাঁদের বাধা দিলে বচসা জুড়ে দেয় বিজেপির কর্মীরা সমর্থকরা। সেখানেই রেল পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতি বেধে যায় বিজেপি কর্মীদের। পরে রেল পুলিশকে ইট ছোঁড়া হয় বলে অভিযোগ। এমনকী বিজেপি কর্মীরা দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেনে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় বলে দাবি করেছে আরপিএফ। পাশাপাশি কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়েই স্লোগান দিতে শুরু করেন বেশ কয়েকজন বিজেপির মহিলা মোর্চার কর্মী। মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভের সময় জয় শ্রীরাম স্লোগান দেওয়ার পাশাপাশি কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয় । সব মিলিয়ে বিজেপির নবান্ন অভিযান ঘিরে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল মহানগরী।

Facebook Comments

Most Popular

‘উমফানে দুর্নীতি খতিয়ে দেখবে ক্যাগই’, নির্দেশ বহাল প্রধান বিচারপতির

নিজস্ব সংবাদদাতা : উমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে কি না তা তদন্ত করবে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল তথা ক্যাগ। সেই নির্দেশের...

৪ জানুয়ারি থেকে রাজ্যে স্কুল খুলতে চায় ICSE বোর্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা : ইংরেজি নতুন বছরের শুরুতেই রাজ্যে স্কুল খুলতে চায় ICSE বোর্ড। যদিও রাজ্যের শিক্ষা দফতর এ বিষয়ে এখনও কোনও...

একটি অ্যাপের মাধ্যমে ট্রেন সংক্রান্ত সমস্ত সমস্যার সমাধান

নিজস্ব সংবাদদাতা : ট্রেনের টাইম টেবিল অথবা ট্রেনের যাত্রাপথ ও বর্তমান স্থিতি সম্পর্কে জানা যেত বিভিন্ন বেসরকারি অ্যাপ অথবা ওয়েবসাইট থেকে।...

‘কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই দেশে করোনা ভ্যাকসিন’, সর্বদল বৈঠকে বললেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা : দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে সর্বদলীয় বৈঠক বসেছিল। ভার্চুয়াল মাধ্যমে বৈঠক হয়। কোভিড-১৯ পরিস্থিতির পাশাপাশি,...
Facebook Comments