Wednesday, June 23, 2021
HomeEDITOR PICKSকলকাতার রাস্তায় সাইকেল সোলজার্স

কলকাতার রাস্তায় সাইকেল সোলজার্স

নিজস্ব সংবাদদাতা: স্পিরিট! একেই বলে। করোনা আবহে ক্যাম্পাস বন্ধ থাকায় শহরে ফেরেন লন্ডনের কিংস কলেজের পাবলিক পলিসির ছাত্র অরবিন্দ কুমার।


একদিন অনলাইন ক্লাস চলাকালীন তাঁর ঠাকুমার কিছু জরুরি জিনিস আনার প্রয়োজন পরে। সেই থেকে অরবিন্দ বুঝতে পারেন, শুধু তাঁর ঠাকুমাই নন, শহরে হয়তো আরও অনেক বয়স্করা আছেন যাঁদের এমন সামগ্রীর প্রয়োজন। এই ভাবনার পরই কিছু ভলেন্টিয়ার্স লাগবে জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অরবিন্দ একটি পোস্ট করেন। এরপরই সাড়া মেলে মানুষের, তৈরি হয় সাইকেল সোলজার্স। প্রথম ডেলিভারি তাঁরা দেন ১৫ই মে।


বয়স্করা ওই আট ভলেন্টিয়ার্সের একজনকে শুধু ফোন করে জানাবেন, কি লাগবে, কতোটা লাগবে আর কোথায় পৌঁছতে হবে। কোনরকম ডেলিভারি চার্জ ছাড়াই বাড়িতে সেই সামগ্রী পৌঁছে দেবে কলকাতার সাইকেল আর্মি। কলকাতা পুলিশের অনুমতি নিয়েই সম্পূর্ণ নিরাপত্তার সঙ্গে কাজ করছেন এঁনারা। অরবিন্দ জানান,”আমরা কলকাতার রবীন্দ্র সরোবর থেকে এই কাজ শুরু করেছি। সেখানকার ওসি জয়ন্ত মুখার্জী প্রথম আমাদের অনুমতি দেন। খুব খুশী হয়েই পুলিশ আমাদের অনুমতি দিয়েছে।”


কলকাতার সাইকেল সোল জার‍্সদের সঙ্গে যোগাযোগ করার নম্বরটি হল- ৮৬৯৭০২৮৬৩৪। এই আর্মিতে আছেন উদ্যোক্তা অরবিন্দ কুমার সহ যশবর্ধন গুপ্তা যিনি লন্ডন থেকে স্নাতক, নৌমান আনওয়ার যিনি সেন্ট স্টিফেন কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর, আর্ট ডিজাইনে মাস্টার্স করা বিশালাক্ষী, রাজদীপ মান্থা যিনি এলএলবি ছাত্র, আইটিসি ইনফোটেকের টি.কে. রশাকৃষ্ণন এবং লেখক-কবি এসএস কুমার। এখনও পর্যন্ত যোধপুর পার্কের দুজন বয়স্ক চারু এবং ভিলাস প্রধান দুজন সম্পূর্ণভাবে নির্ভরশীল এই সাইকেল আর্মির উপর। বোস্টনের এক বাসিন্দা ঢাকুরিয়ায় থাকা তাঁর পিতার জন্যে সাইকেল আর্মির পরিষেবা ব্যবহার করেছেন।


এরসঙ্গে এই সোলজার্সরা রাস্তায় কর্মরত পুলিশ কর্মীদের ‘এনার্জি প্যাক’ দিচ্ছেন,যাতে কিছু খাদ্যসামগ্রী রয়েছে।

Most Popular